আজ: ২১ এপ্রিল, ২০১৮ ইং, শনিবার, ৮ বৈশাখ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৬ শাবান, ১৪৩৯ হিজরী, বিকাল ৫:২৯
সর্বশেষ সংবাদ
অর্থ ও শিল্প, আইন ও বিচার, প্রধান সংবাদ ভবন ভাঙতে আরো ৭ মাস পেল বিজিএমইএ

ভবন ভাঙতে আরো ৭ মাস পেল বিজিএমইএ


পোস্ট করেছেন: নিউজ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ১০/০৮/২০১৭ , ৩:৩৪ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: অর্থ ও শিল্প,আইন ও বিচার,প্রধান সংবাদ


ভোরের খবর ডেস্ক- রাজধানীর হাতিরঝিল প্রকল্প এলাকায় বেআইনিভাবে নির্মিত ১৬ তলা বিজিএমইএ ভবন ভেঙে ফেলতে পোশাক রফতানিকারকদের সংগঠনকে আরো ৭ মাস সময় দিয়েছে সর্বোচ্চ আদালত।

রোববার বেলা সাড়ে ১১টায় ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহহাব মিঞার নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের আপিল বিভাগের বেঞ্চ শুনানি শেষে আদেশ দেন। আদেশে আদালত বলেন- শেষ বারের মত এ সময় দেয়া হলো। আদেশে প্রথমদিকে ৬ মাস সময় দেয়া হলেও পরবর্তীতে তা ৭ মাস করা হয়।

বেঞ্চের অপর সদস্যরা হলেন- বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, বিচারপতি ইমান আলী, বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী ও বিচারপতি মির্জা হাসেইন হায়দার। গত আগস্ট মাসে বিজিএমইএ কর্তৃপক্ষের আইনজীবী সুপ্রিম কোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এ আবেদন করেন।

রিভিউ আবেদন খারিজ হয়ে যাওয়ার পর গত মার্চে বিজিএমইএর আবেদনে আপিল বিভাগ ছয় মাস সময় দিয়েছিল, যা শেষ হয় ১২ সেপ্টেম্বর। এরপর থেকেই নতুন করে সাত মাস গণনা শুরু হবে।

শুনানিতে বিজিএমইএর আইনজীবীকে উদ্দেশ্য করে বিচারপতি ওয়াহহাব মিঞা বলেন, এটাই শেষ সুযোগ। এরপর আর সময় চাইবেন না। এর মধ্যে যা করার করবেন।

আদালতে বিজিএমইএ-এর পক্ষে শুনানিতে ছিলেন অ্যাডভোকেট কামরুল হক সিদ্দিকী। অন্যদিকে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) পক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। এ মামলায় হাই কোর্টে অ্যামিকাস কিউরির দায়িত্ব পালন করা মনজিল মোরসেদও শুনানিতে উপস্থিত ছিলেন।

২০১১ সালের ৩ এপ্রিল বিজিএমইএ ভবন ৯০ দিনের মধ্যে ভেঙে ফেলার রায় দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। ওই বছরের ১৯ মার্চ ৬৯ পৃষ্ঠার পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ হয়। এরপর ২১ মে বিজিএমইএ কর্তৃপক্ষ আপিলের অনুমতি চেয়ে আবেদন করে। একই বছরের ২ জুন বিজিএমইএ কর্তৃপক্ষের করা আপিলের অনুমতি চেয়ে আবেদন (লিভ টু আপিল) খারিজ করে হাইকোর্টের রায় বহাল রাখেন আপিল বিভাগ। ৮ নভেম্বর আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ করা হয়। এরপর ৮ ডিসেম্বর রিভিউ আবেদন করে বিজিএমইএ, যাতে আপিল বিভাগের রায় স্থগিত করে বহুতল ভবনটি ভেঙে ফেলার জন্য তিন বছরের সময় চাওয়া হয়। এ বছরের ১২ মার্চ এ আবেদনের শুনানি নিয়ে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের তিন সদস্যের বেঞ্চ ভবনটি ভাঙতে ছয় মাস সময় দেন। কিন্তু ভবনটি সরানোর চেষ্টা করেনি বিজিএমইএ কর্তৃপক্ষ। এরই মধ্যে ২৩ আগস্ট আরও এক বছরের সময় চেয়ে আবেদন করে বিজিএমইএ।

Comments

comments

Close