আজ: ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, সোমবার, ১৪ ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ১০ জমাদিউস-সানি, ১৪৩৯ হিজরী, রাত ১:৩৮
সর্বশেষ সংবাদ
চটগ্রাম বিভাগ, প্রধান সংবাদ চট্টগ্রামে পিডিবির ৪ বিদ্যুৎকেন্দ্রে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ

চট্টগ্রামে পিডিবির ৪ বিদ্যুৎকেন্দ্রে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ


পোস্ট করেছেন: News Desk | প্রকাশিত হয়েছে: ১১/০১/২০১৭ , ৮:১০ অপরাহ্ণ | বিভাগ: চটগ্রাম বিভাগ,প্রধান সংবাদ


দুই মাস ধরে তীব্র গ্যাস সংকটে রয়েছে কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (কেজিডিসিএল)। ফলে চট্টগ্রামে গ্যাসভিত্তিক সরকারি চার বিদ্যুৎকেন্দ্রেই গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করে দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। তবে গ্যাসভিত্তিক বেসরকারি সাতটি বিদ্যুৎকেন্দ্রেই সরবরাহ স্বাভাবিক রয়েছে।

জানা গেছে, চলতি বছরের মাঝামাঝি পর্যন্ত দৈনিক ২৭ কোটি ৫০ লাখ থেকে ২৮ কোটি ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ পেত কেজিডিসিএল। তবে আপার স্ট্রিমের কয়েকটি বিতরণকারী প্রতিষ্ঠানের গ্যাসের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় চট্টগ্রামে সরবরাহ কমে যায়। কয়েক দিন ধরে চট্টগ্রামে গ্যাসপ্রাপ্তি ২১ কোটি ঘনফুটে নেমে এসেছে। ৪৫ কোটি ঘনফুট চাহিদার বিপরীতে এ সরবরাহ পাচ্ছে বিতরণ সংস্থাটি। এতে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (বিপিডিবি) গ্যাসনির্ভর কেন্দ্রগুলোর সরবরাহ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

বিপিডিবি সূত্রে জানা গেছে, চট্টগ্রামে সরকারি বিদ্যুৎকেন্দ্রের মধ্যে শিকলবাহা ১৫০ ও ২২৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলো হলো দ্বৈত জ্বালানিনির্ভর। ২২৫ মেগাওয়াট কেন্দ্রটির ১৫০ মেগাওয়াট ইউনিটটি চালু করা হয় চলতি বছরের মাঝামাঝি। ওই সময় গ্যাস দিয়ে কেন্দ্রটি চালানো হলেও বর্তমানে গ্যাসপ্রাপ্তি না থাকায় ফার্নেস অয়েলে চলছে। তবে গ্যাসের অভাবে বন্ধ রয়েছে শিকলবাহা ১৫০ মেগাওয়াট পিকিং বিদ্যুৎকেন্দ্রটির উৎপাদন। পুরনো ১৫০ মেগাওয়াট কেন্দ্রটি ফার্নেস অয়েলে চালানোর সুযোগ থাকলেও যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে তাও সম্ভব হচ্ছে না। গ্যাসের অভাবে শিকলবাহা ৬০ মেগাওয়াট কেন্দ্রটিও আগামী ছয় মাসে চালু হওয়ার সম্ভাবনা দেখছে না বিদ্যুৎ বিভাগ। তবে ফার্নেস অয়েলনির্ভর হাটহাজারী ও দোহাজারী বিদ্যুৎকেন্দ্রে সর্বোচ্চ (২০০ মেগাওয়াট) উৎপাদন হচ্ছে।

পিডিবির প্রধান প্রকৌশলী (শিকলবাহা) ভুবন বিজয় দত্ত জানান, গ্যাসের অভাবে শিকলবাহার তিনটি বিদ্যুৎকেন্দ্র এতদিন অনিয়মিতভাবে চালু রাখা হয়েছিল। তবে কয়েক দিন ধরে গ্যাস সরবরাহ পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় কেন্দ্রগুলো আর চালু রাখা যাচ্ছে না।

সরকারি কেন্দ্রে বন্ধ রাখা হলেও চট্টগ্রামের বেসরকারি সাতটি বিদ্যুৎকেন্দ্রই নিয়মিত গ্যাস সরবরাহ পাচ্ছে। এর মধ্যে ৫৫ মেগাওয়াটের শিকলবাহা রেন্টাল, ২৬ দশমিক ৭ মেগাওয়াটের আরপিসিএল, ২২ দশমিক ৬ মেগাওয়াটের রিজেন্ট, ১০০ মেগাওয়াটের জুলদা, ৫৫ মেগাওয়াটের বারাকা পতেঙ্গা, ১১০ মেগাওয়াটের এনার্জিপ্যাক ও ৫০ মেগাওয়াটের ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলো নিয়মিত গ্যাসপ্রাপ্তির মাধ্যমে উৎপাদন ধরে রেখেছে। নিজেদের বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলো ফার্নেস অয়েল দিয়ে চালানোর ফলে উৎপাদন খরচ বেড়ে গেছে পিডিবির।

গ্যাস সংকটের কারণে উৎপাদন নিয়ে শঙ্কায় আছেন চট্টগ্রামের শিল্পোদ্যোক্তারাও। শিল্প খাতে ১০ কোটি ঘনফুট চাহিদার বিপরীতে বর্তমানে সরবরাহ দেয়া হচ্ছে দৈনিক সাড়ে চার কোটি ঘনফুট গ্যাস।

Comments

comments

Close