আজ: [english_date], [bangla_day], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]
সর্বশেষ সংবাদ
প্রধান সংবাদ, রাজনীতি রসিক নির্বাচনে ব্যবহার হবে ইভিএম

রসিক নির্বাচনে ব্যবহার হবে ইভিএম


পোস্ট করেছেন: নিউজ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: 12/15/2017 , 9:11 am | বিভাগ: প্রধান সংবাদ,রাজনীতি



বাংলাদেশে এই প্রথমবারের মতো রংপুর সিটি কর্পোরেশন (রসিক) নির্বাচনে নতুন ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) ব্যবহার হতে যাচ্ছে। নির্বাচন কমিশনার রফিকুল ইসলাম গতকাল  বৃহস্পতিবার বিকেলে রংপুর বেগম রোকেয়া কলেজ কেন্দ্রে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট দেওয়ার প্রশিক্ষণের উদ্বোধন করেন।
তিনি বলেন, রংপুরে পরীক্ষামূলকভাবে একটি কেন্দ্রে ইভিএম চালুর পর এটির সফলতার উপর নির্ভর করবে পরবর্তীতে এটি জাতীয় সংসদ নির্বাচনসহ অন্যান্য নির্বাচনে এই পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ করা হবে কিনা। রংপুরে একটি মডেল নির্বাচন উপহার দেওয়ার জন্য নির্বাচন কমিশন সবদিক থেকে ব্যবস্থা নিয়েছে। বৃহস্পতিবার থেকে আগামী ১৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত ভোটারদেরকে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট দিতে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।
এদিকে রসিক নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী কাওসার জামান বাবলার মনোনয়ন বাতিল চেয়ে সোনালী ব্যাংকের দায়ের করা রিট কার্যতালিকা থেকে বাদ দিয়েছেন হাইকোর্ট।গতকাল  দুপুরে রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী ও বিচারপতি একেএম জহিরুল হকের হাইকোর্টে বেঞ্চ তা কার্যতালিকা থেকে বাদ দেওয়ার আদেশ দেন। এর ফলে কাওসার জামান বাবলার নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে আর কোনও বাধা থাকল না। আদালতে বিএনপির মেয়র প্রার্থীর পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী ব্যারিস্টার বদরুদ্দোজা বাদল ও রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল শশাঙ্ক শেখর সরকার। এই রায়ের পর থেকে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে খুব জোরেসোরেই নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন মেয়র প্রার্থী কাওসার জামান বাবলা। সন্ধ্যায় সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন এলাকায় নির্বাচনী পথসভায় বিএনপির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা দক্ষিণের সভাপতি হাবিব উন নবী খান সোহেল অভিযোগ করে বলেন, রসিক নির্বাচনে মহাজোটের প্রার্থীদের যেকোন একজনকে বিজয়ী করার জন্য ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হওয়া নিয়ে সন্দেহ বাড়ছে। এটি নির্বাচন কমিশনের জন্য এসিড টেস্ট।
ইভিএম সম্পর্কে বিএনপির মেয়র প্রার্থী কাওসার জামান বাবলা বলেন, ভোটাররা ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ সম্পর্কে সচেতন নয়। তাই এই পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণে কারচুপির আশংকা থাকে।
আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও রাজশাহী বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা সংসদ সদস্য খালিদ মাহমুদ চৌধুরীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, রংপুরের নির্বাচনে সরকার সম্পূর্ণ নিরপেক্ষ থাকবে। প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার আমলে কোথাও ভোটে কারচুপি করা হয়নি। রংপুরের ভোটেও কোন হস্তক্ষেপ করা হবে না। প্রভাবমুক্ত নির্বাচন করার জন্য সরকার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন।
বিএনপি নেতা সোহেলের ‘রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মহাজোটের প্রার্থীদের যে কোন একজনকে বিজয়ী করার জন্য ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে’ বক্তব্য প্রসঙ্গে খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, বর্তমান সরকার ষড়যন্ত্রের রাজনীতিতে বিশ্বাসী নয়। বরং বিএনপি ষড়যন্ত্রের রাজনীতিতে পরিপক্ক। ২১ ডিসেম্বর রসিক নির্বাচনে তা পরিষ্কার হবে। এই নির্বাচনে যিনি মেয়র হবেন তিনি জনগণের ভোটেই নির্বাচিত হবেন। কোন ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে কাউকে জয়ী করা হবে না।
আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা যায়, যুবলীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও রংপুরের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা ইমরান হোসেন এবং সদস্য ডা. মাহফুজুর রহমান উজ্জ্বল এবং ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইনের নেতৃত্বে ১০ সদস্যের কেন্দ্রীয় নেতারা রংপুরে এসে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী সরফুদ্দীন আহমেদ ঝন্টুর পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিচ্ছেন। রবিবার যুবলীগের কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক হারুন-অর-রশীদের নেতৃত্বে ৩০-৩৫ সদস্যের একটি দল রংপুরে আসবেন।
এদিকে রসিক নির্বাচনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টির (জাপা) ৩ মেয়র প্রার্থী একে অপরের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণবিধি লংঘন, কালো টাকার ছড়াছড়ি ও নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ এনেছেন।
রিটার্নিং ও আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা সুভাষ চন্দ্র সরকারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, নির্বাচনে পক্ষপাতিত্বের কোন প্রশ্নই উঠে না। কালো টাকার ছড়াছড়ির ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পেলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

Comments

comments

Close