আজ: [english_date], [bangla_day], [bangla_date], [hijri_date], [bangla_time]
সর্বশেষ সংবাদ
বাংলাদেশ, বিভাগীয় সংবাদ, রংপুর বিভাগ, রাজনীতি রসিক নির্বাচনঃ পুনঃনির্বাচিত হবার পথে এগিয়ে সাবেক কাউন্সিলর মির্জা

রসিক নির্বাচনঃ পুনঃনির্বাচিত হবার পথে এগিয়ে সাবেক কাউন্সিলর মির্জা


পোস্ট করেছেন: নিউজ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: 12/17/2017 , 5:24 pm | বিভাগ: বাংলাদেশ,বিভাগীয় সংবাদ,রংপুর বিভাগ,রাজনীতি



জাকারিয়া ইসলাম , রংপুর ব্যুরোঃ

  আসন্ন রংপুর  সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে  ০২ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদপ্রার্থী হিসেবে করাত মার্কা নিয়ে  লড়ছেন সদ্য সাবেক কাউন্সিলর  মো: গোলাম সরওয়ার মির্জা । শহরের বর্ধিত অংশ পড়েছে এই ওয়ার্ডে ।  বাবার মৃত্যুর পর উপ –নির্বাচনে ৩৪৬৫ ভোট পেয়ে  জয়ী হয়ে কাউন্সিলর হিসেবে নির্বাচিত হন সাবেক এই ছাত্রনেতা । নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই নিজ ওয়ার্ডকে মডেল ওয়ার্ড হিসেবে গড়ার সংগ্রাম শুরু করেন ,  মেয়াদের  শেষ  সময় পর্যন্ত তার ওয়ার্ডে বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কাজ হয়েছে এবং অনেক কাজ চলমান রয়েছে। নিজের উন্নয়নমূলক ও সেবামূলক কাজই মির্জাকে জনবান্ধব কাউন্সিলর করে তুলেছে । এবারের নির্বাচনেও  সর্ব কনিষ্ঠ কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যে অন্যতম তিনি । পারিবারিক ঐতিহ্য, সামাজিকভাবে গ্রহনযোগ্যতা ও উদিয়মান রাজনৈতিক হিসেবে মির্জা  সবার কাছে প্রিয় ব্যক্তিত্ব । ছাত্র জীবনের শুরু থেকেই ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত হয়ে তিনি  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে নেমেছিলেন ।

 

 দায়িত্ব পালনকালে  কাঁচা রাস্তা পাকা করণ , সড়ক বাতি স্থাপন, বয়স্ক ও প্রতিবন্ধী ভাতা প্রদান, যৌতুক, বাল্যবিবাহ, ইভটিজিং ও মাদকদ্রব্য সম্পর্কে জনসচেতনতা সৃষ্টি, বিভিন্ন সামাজিক সচেতনমূলক এবং উন্নয়নমূলক কাজ করা হয়েছে এবং হচ্ছে। মির্জা জানান , গরীব ও অসহায় মানুষেরা যখন বিভিন্ন সমস্যায়  ও বিপদে পড়ে আমার কাছে আসেন তখন আমি নিজস্ব অর্থায়নে সবসময় চেষ্টা করি তাদের সহযোগিতা করার জন্য।

মেয়াদকালীন সময়ে কাউন্সিলর হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে তার ওয়ার্ডের  উন্নয়ন মূলক কাজের মধ্যে তিনি জানান, চার কোটি নব্বই লক্ষ টাকা ব্যয়ে নির্মিত করা হয়েছে বাওয়াই পাড়ার ব্রিজ।  এছাড়া ১৫০ জনকে বয়স্ক ভাতা, ২৫ জনকে প্রতিবন্ধী  ভাতা, ১৩ জন বিধবা ভাতা, ৬৬ জনকে মাতৃ ভাতা প্রদান করা হয়েছে। এছাড়াও ১৫০ জনকে গরীব মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে এককালীন বৃত্তি প্রদান করা হয়েছে।

এছাড়াও ওয়ার্ডের ৮ কিমি (প্রায়) ৮টি রাস্তার কাজ, ১ টি ৫ কিমি (প্রায়) রাস্তা সংস্কার কাজ সম্পন্ন  হয়েছে। ১ টি ৬ কিমি (প্রায়) রাস্তার কাজ, ৩ টি ৪.৫ কিমি (প্রায়) রাস্তার পাঁকা করন কাজ চলমান ছিল । এছাড়া, ৫ কিমি ( প্রায়) রাস্তায় জনগনের সুবিধার জন্য সড়ক বাতি লাগানো হয়েছে। ইএসডিও কর্তৃক ২ টি আনন্দ স্কুল, সিজিপি কর্তৃক ১ টি স্কুল, প্রায় ৩০০ পরিবারের জন্য স্বাস্থ্য সম্মত স্যানিটেশন এর ব্যবস্থা, দুস্থ পরিবার সমূহের   চিকিৎসা সহ শিক্ষার মান উন্নয়নের  জন্য কাজ করেন তিনি । মির্জা জানান , মেয়াদকালীন সময়ে ৪ টি কালভার্ট ২ টি সিসি রাস্তার টেন্ডার হয়েছে ।

২নং  ওয়ার্ডকে  মাদক মুক্ত  করার প্রয়াসে দিন রাত কাজ করে চলেছেন তিনি ।Image may contain: one or more people

নিজের কর্ম পরিধি সম্পর্কে তিনি বলেন , “৫বছর সময়কাল তেমন কিছুই নয়, উন্নয়নমনাদের জন্য এটি যেন ৫দিন , আমার যে সমস্ত কাজ মেয়াদকালীন সময়ে শেষ করতে পারিনি জনগনের উন্নয়নকল্পে সে কাজগুলো শেষ করতেই জনগনের দোয়ায় আবার নির্বাচিত হতে চাই” ।

নির্বাচিত হয়ে  আগামীতে ২ নং ওয়ার্ডে একটি বিএম কলেজ, একটি কেন্দ্রীয় কবরস্থান ও একটি কমিউনিটি সেন্টার তৈরি সহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

নির্বাচনে জয় লাভের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী তিনি । তার ওয়ার্ডের মানুষকে সচেতন হিসেবেই জানেন, তারা  ভালো-মন্দ বিচার বিবেচনা করতে পারে। নিজের  কাজ, সততা , দক্ষতা, মেধা এবং  ওয়ার্ডবাসীর প্রতি ভালোবাসা ও বিশ্বাস  তাকে  নির্বাচনে জয়ী করবে বলে আশাবাদী তিনি ।Image may contain: 4 people, people standing and outdoor

২ নং ওয়ার্ড ঘুরে দেখা গেছে জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছেন মির্জা ।  বেশিরভাগ ভোটারই চায় শিক্ষিত, সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত প্রার্থী হিসেবে মির্জাকে পুনঃ নির্বাচিত করতে। মির্জা  প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত এলাকার প্রতিটি বাড়ি-বাড়ি গিয়ে ছোট-বড়, মুরুব্বি ও বয়োজ্যেষ্ঠদের  সাথে পরামর্শ করছেন। সবাই এক বাক্যে দোয়া দিয়ে তাকে  নির্বাচিত করার  প্রত্যয় ব্যাক্ত করেছেন।

Comments

comments

Close