আজ: ১৭ আগস্ট, ২০১৮ ইং, শুক্রবার, ২ ভাদ্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৬ জিলহজ্জ, ১৪৩৯ হিজরী, ভোর ৫:১৪
সর্বশেষ সংবাদ
অপরাধ, জাতীয়, প্রধান সংবাদ নয় জেলায় ‌‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১১ মাদক ব্যবসায়ী

নয় জেলায় ‌‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১১ মাদক ব্যবসায়ী


পোস্ট করেছেন: নিউজ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ০৫/২২/২০১৮ , ১২:২০ অপরাহ্ণ | বিভাগ: অপরাধ,জাতীয়,প্রধান সংবাদ



মাদক নির্মূলে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযান অব্যাহত রয়েছে। গতকাল সোমবার দিবাগত রাত থেকে আজ মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত বন্দুকযুদ্ধে নয় জেলায় ১১ জন নিহত হয়েছেন।
তাদের মধ্যে কুমিল্লায় ২ জন, নীলফামারীতে ২, চট্টগ্রামে ১, নেত্রকোনায় ১, দিনাজপুরে ১, ফেনী ১, নারায়ণগঞ্জে ১, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ১ ও চুয়াডাঙ্গায় একজন রয়েছেন।

নিহতরা সবাই মাদক ব্যবসায়ী ছিলেন বলে র‌্যাব ও পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে।
প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-
কুমিল্লা: কমিল্লার সদর উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে দুইজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ৪ পুলিশ সদস্যও আহত হয়েছেন। পুলিশের ভাষ্য, নিহতরা মাদক ব্যবসায়ী ছিলেন। গতকাল সোমবার দিবাগত রাতে উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের অরণ্যপুর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।
নিহতরা হলেন– কুমিল্লা সদরের শুভপুর এলাকার আলী মিয়ার ছেলে পেয়ার আলী। চৌয়ারা এলাকার মহেশপুর গ্রামের আবদুল মান্নানের ছেলে শরিফ। আহত অবস্থায় সেলিম নামের আরেক মাদক ব্যবসায়ী আটক হয়েছেন।

কুমিল্লা কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু ছালাম মিয়া জানান, গতকাল দিবাগত রাতে অরণ্যপুর এলাকায় পুলিশ ও গোয়েন্দা পুলিশের সঙ্গে মাদক ব্যবসায়ীদের গোলাগুলি হয়। এসময় ঘটনাস্থলেই ২ মাদক ব্যবসায়ী নিহত হন। আহত হন আরও একজন। এসময় ঘটনাস্থল থেকে একটি জিপ, একটি আগ্নেয়াস্ত্র, ৩ রাউন্ড গুলি, পাঁচশ’ বোতল ফেনসিডিল ও বিপুল পরিমাণ গাঁজা উদ্ধার করা হয়েছে। আহত মাদক ব্যবসায়ীকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে বলেও জানান পুলিশের ওই কর্মকর্তা।
এছাড়া দেবীদ্বার উপজেলায় বন্দুকযুদ্ধে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় সাদ্দাম নামের এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ।

নীলফামারী: জেলার সৈয়দপুর উপজেলায় গতকাল রাত আড়াইটার দিকে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে দুইজন নিহত হয়েছেন। পুলিশ জানিয়েছে, তারা মাদক ব্যবসায়ী ছিলেন।
নিহতরা হলেন- সৈয়দপুর পৌর শহরের ইসলামবাগ মহল্লার আব্দুল হান্নানের ছেলে মো. জনি হোসেন (২৭) ও নিচু কলোনি মহল্লার ইউসুফ হোসেনে ছেলে শাহিন আহমেদ (৩০)।
সৈয়দপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অশোক কুমার পাল জানান, গতকাল সন্ধ্যার দিকে ইসলামবাগ মহল্লা থেকে জনিকে এবং নিচু কলোনি মহল্লা থেকে শাহিনকে গ্রেপ্তার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পর তাদের তথ্য অনুযায়ী বাইপাস মহাসড়কের গোলাহাট বধ্যভূমি এলাকায় অপর দুই মাদক ব্যবসায়ী জসিয়ার ও নূর বাবুকে ধরতে ও মাদকদ্রব্য জব্দ করতে গেলে সন্ত্রাসীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ও ককটেল ছোড়ে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। এই সুযোগে গ্রেপ্তার জনি ও শাহিন পালানোর চেষ্টা করলে দু’পক্ষের গোলাগুলিতে তারা নিহত হন।
এদিকে মাদক ব্যবসায়ীদের ককটেলের আঘাতে ৪ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে ককটেল, দেশীয় অস্ত্র , ইয়াবা এবং একটি মোটরসাইকেল জব্দ করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রামে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ শুক্কুর আলী (৪৩) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। র‌্যাবের ভাষ্য, নিহত ওই ব্যক্তি র্শীষ মাদক ব্যবসায়ী ছিলেন। গতকাল সোমবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে নগরের বায়েজিদ থানার ডেবারপাড় এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের এ ঘটনা ঘটে।
র‌্যাব-৭ এর এএসপি (মিডিয়া) মিমতানুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ হাবিবুর রহমান ও মো. মোশারফ নিহত হওয়ার পর বরিশাল কলোনির মালিপাড়া থেকে শনিবার রাতে মো. হানিফ ওরফে খোকন (৩৫), কাজী মো. আব্দুল্লাহ (২৮) ও খোকন কুমার দাশকে (৩২) নামে তিন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করে পুলিশ।

চুয়াডাঙ্গা: চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী কামরুজ্জামান সাধু (৪২) নিহত হয়েছেন। এসময় আহত হয়েছেন ৪ পুলিশ সদস্য।
গতকাল সোমবার দিবাগত রাত ২টার দিকে আলমডাঙ্গা রেল স্টেশনের অদূরে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে এক বস্তা ফেনসিডিল, একটি পিস্তুল ও ৩ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করেছে পুলিশ। কামরুজ্জামান সাধু উপজেলার হারদী গ্রামের মৃত ইমদাদুল হকের ছেলে।
আলমডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু জিহাদ ফখরুল আলম খান জানান, সোমবার দিবাগত রাত ২টার দিকে আলমডাঙ্গা রেল স্টেশনের পাশ দিয়ে একদল মাদক ব্যবসায়ী বিপুল পরিমাণ মাদক পাচার করছে বলে তথ্য পায় পুলিশ। এরপর অভিযান চালালে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি করে মাদক ব্যবসায়ীরা। পরে পুলিশও পাল্টা গুলি চালালে পাচারকারীরা পালিয়ে যায়।
এসময় গুলিবিদ্ধ অবস্থায় শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী কামরুজ্জামান সাধুকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে জানান।
এ ঘটনায় চার পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। তারা হলেন আলমডাঙ্গা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জিয়াউর রহমান, সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) আব্দুল হামিদ, কনস্টেবল মাসুদ রানা ও রাকিবুল হোসেন। আহত পুলিশ সদস্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।
নেত্রকোনা: নেত্রকোনার সদর উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। এই ঘটনায় আহত হয়েছেন সদর থানার ওসি বোরহান উদ্দিনসহ আরও ৪ পুলিশ সদস্য। গতকাল সোমবার মধ্যরাতে উপজেলার বড়াইল এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।
নিহত মাদক ব্যবসায়ীর নাম আমজাদ হোসেন (৩৫)। তার বাড়ি নেত্রকোনা শহরের পশ্চিম নাগড়া এলাকায়।
থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বোরহান উদ্দিন জানান, সোমবার দিনগত রাতে মাদক ব্যবসায়ী আমজাদ বড়াইল এলাকার কংস নদীর ব্রিজের পশ্চিম পারে অবস্থান করছে জানতে পেরে অভিযান চায় পুলিশ। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে গুলি চালায় আমজাদ ও তার লোকজন। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়।
পরে বন্দুকযুদ্ধ থেমে গেলে ঘটনাস্থল থেকে আমজাদের গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এই ঘটনায় ওসি বোরহান উদ্দিনসহ ৪ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। তাদের নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান ওসি।
দিনাজপুর: দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক মাদক নিহত হয়েছেন। এসময় ঘটনাস্থল থেকে পিস্তল, ইয়াবা ও ককটেল উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল সোমবার দিবাগত রাতে দিনাজপুর-গোবিন্দগঞ্জ সড়কের বিরামপুরে এ ঘটনা ঘটে।
নিহতের নাম প্লাবন রহমান। তবে তার বিস্তারিত পরিচয় জানা যায়নি। বিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুস সবুর ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
ফেনী: ফেনীর সদর উপজেলায় র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। গতকাল সোমবার দিবাগত রাতে উপজেলার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের লেমুয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
নিহতের নাম মঞ্জুরুল আলম মঞ্জু। তার বাড়ি চট্টগ্রাম জেলায় বলে জানা গেছে। ঘটনাস্থল থেকে মাদক ও অস্ত্র উদ্ধার করেছে র‌্যাব।
ফেনী সদর হাসপাতালের আরএমও অসীম কুমার সাহা জানান,সোমবার ভোর রাতে একজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছে। হাসপাতালে আনার আগেই তিনি মারা গেছেন। তার মরদেহ বর্তমানে হাসপাতাল মর্গে রয়েছে।
নারায়ণগঞ্জ: জেলার আড়াইহাজার উপজেলায় শিমুলতলী এলাকায় র‌্যাব-১ এর সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ বাচ্চু খান নামে এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। এসময় উদ্ধার করা হয়েছে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা ও বিদেশি অস্ত্র এবং মাদক ব্যবসার কাজে ব্যবহৃত একটি জিপ গাড়িও উদ্ধার করা হয়।
আজ মঙ্গলবার সকালে উপজেলার শিমুলতলী এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।
নিহত বাচ্চু খান রাজধানী ঢাকার উত্তরার উত্তরখান এলাকার আশরাফ খানের ছেলে।
র‌্যাব জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মাদক উদ্ধারের জন্য শিমুলতলী এলাকায় অভিযান চালায় র‌্যাব। এসময় র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি করে মাদক ব্যবসায়ীরা। র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালালে বাচ্চুর সহযোগীরা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে বাচ্চুর গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করে র‌্যাব।
র‌্যাব-১ এর কোম্পানি কমান্ডার আনোয়ার হোসেন ও আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম এ হক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া: জেলার বাঞ্ছারামপুরে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ধন মিয়া (৩৫) নামে এক জন নিহত হয়েছেন। আজ মঙ্গলবার ভোরে উপজেলার সোনারামপুর এলাকায় এই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত ধন মিয়া উপজেলার মরিচাকান্দি গ্রামের হোসেন মিয়ার ছেলে।
র‌্যাব-১০ এর অ্যাডিশনাল এসপি মহিউদ্দিন ফারুকী জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১০ এর সদস্যরা মঙ্গলবার ভোর রাতে উপজেলার সোনারামপুর এলাকায় অবস্থান নেয়। এসময় নারায়ণগঞ্জ থেকে নিয়ে আসা একটি মাদকের চালানসহ ধন মিয়া ঘটনাস্থলে পৌঁছে। পরে মাদক ব্যবসায়ীরা র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে গুলি করে। র‌্যাবও পাল্টা গুলি করলে ধন মিয়া ঘটনাস্থলেই মারা যায়।
নিহত ধন মিয়ার কাছ থেকে ১১ হাজার সাতশ’ পিস ইয়াবা, নগদ ৪৮ হাজার টাকা, ১টি পিস্তল ও প্রাইভেটকার জব্দ করা হয়। এসময় নিহত ধন মিয়ার স্ত্রী আরজিনা বেগমকে আটক করা হয়েছে। ধন মিয়ার বিরুদ্ধে থানায় ৪টি মামলা রয়েছে।

Comments

comments

Close