আজ: ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং, শনিবার, ২৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৮ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী, সকাল ৬:২২
সর্বশেষ সংবাদ
খেলাধূলা আত্মবিশ্বাসই জেমি ডের দলের বড় পুঁজি

আত্মবিশ্বাসই জেমি ডের দলের বড় পুঁজি


পোস্ট করেছেন: desk news | প্রকাশিত হয়েছে: ১১/১৪/২০১৯ , ১:৩৮ অপরাহ্ণ | বিভাগ: খেলাধূলা



এখন আত্মবিশ্বাসই জেমি ডের দলের বড় পুঁজি। সেটাই তো স্বাভাবিক। ফিফা বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে যেভাবে কাতার ও ভারতের বিপক্ষে বুক চিতিয়ে লড়াই করেছে বাংলাদেশ, তা ছিল প্রশংসার দাবিদার। এখন এই পারফরম্যান্সের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে হবে দলকে। আজ বৃহস্পতিবার ওমানের মাসকটে সুলতান কাবুস কমপ্লেক্সের মাঠে আরও একবার লড়াই করতে চায় দুর্বার বাংলাদেশ। বাংলা টিভি বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে।

 

প্রায় কাতারের সমশক্তির দল ওমান। ফিফা র‌্যাংকিংয়ে ৮৪তম স্থানে তারা, বাংলাদেশ নেই ধারেকাছে। র‌্যাংকিংয়ের ১৮৪তম দল সফরকারীরা। র‌্যাংকিংয়ে বিশাল ব্যবধান, একই সঙ্গে শক্তির মাপকাঠিতে কোনোভাবেই স্বাগতিকদের সঙ্গে পেরে ওঠা কঠিন। কিন্তু তারপরেও একবুক সাহস আছে জামাল-সাদদের। সাম্প্রতিক সময়ে লড়াই করতে শিখেছে তারা, জানে ডিফেন্স জমাট রেখে খেলতে এবং সুযোগ পেলে লক্ষ্যভেদ করতে।

দারুণ শক্তির ওমান যে বাংলাদেশের জন্য বড় বাধা তা অকপটে বলে দেওয়া যায়। তাও আবার নিজেদের মাঠে খেলা। কিন্তু মাঠের লড়াইয়ে প্রতিপক্ষকে তাদের মতো করে খেলতে না দিলেই তো হয়! বাংলাদেশ কোচ জেমি ডের কৌশল ঠিক তেমনই। নিজেদের ডিফেন্স অটুট রেখে প্রতি আক্রমণে ওঠো- এই শ্লোগানে দল খারাপ করছে না। ওমানে আগেই এসে অবশ্য এখানকার আবহাওয়ার সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিয়েছে দল।

এরই সঙ্গে প্রীতি ম্যাচে স্থানীয় প্রিমিয়ার লিগের মাসকট ক্লাবের বিপক্ষে জয় পেয়ে আত্মবিশ্বাসে যোগ হয়েছে বাড়তি জ্বালানি। আজ মাঠে বাড়তি প্রেরণা হিসেবে থাকছে প্রবাসী বাংলাদেশিরাও। গ্যালারি ‘বাংলাদেশ, বাংলাদেশ’ শ্লোগানে মুখরিত হবে, যা জামাল ভূঁইয়াদের করবে উদ্দীপ্ত। প্রবাসীদের মাঠে এসে সমর্থনের অনুরোধ করেছেন অধিনায়ক।

ওমান কিন্তু টেকনিক্যালিও বেশ এগিয়ে। তাদের কোচ থেকে খেলোয়াড় সবাই উঁচুমানের। তাই তো বাংলাদেশের অধিনায়ক জামাল সতর্ক, ‘ওমান শক্তিশালী দল, কোনও সংশয় নেই। তারা বেশ গোছালো খেলা খেলে থাকে। তাদের ভালো খেলোয়াড়ও আছে, যারা গোল করার সামর্থ্য রাখে। তবে আমাদের কাজ হলো তাদের গোল করতে না দেওয়া। তারা যেন গোল করতে না পারে, সেটার দিকে আমাদের লক্ষ্য রাখতে হবে।’

প্রতিপক্ষের শক্তিশালী দিক দেখার পাশাপাশি দুর্বল দিকও দেখা হয়েছে। জামাল বলেছেন, ‘এই ম্যাচকে সামনে রেখে আমাদের ভালো অনুশীলন হয়েছে। আমরা ওমানের আগের খেলার ভিডিও দেখেছি। তাদের শক্তির পাশাপাশি দুর্বলতাও জানা আছে। আমরা সব দিক বিবেচনা করেই শতভাগ আত্ববিশ্বাস নিয়েই মাঠে নামবো।’

ওমানের সঙ্গে সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ খেলেনি। ফিফা স্বীকৃত পরিসংখ্যানে দেখা গেছে ওমানের সঙ্গে একবারই মুখোমুখি হয়েছিল বাংলাদেশ। ১৯৮২ সালে পাকিস্তানের করাচিতে হওয়া সেই ম্যাচে ৩-১ গোলে জিতেছিল ওমান।

বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে ‘ই’ গ্রুপে কাতার শীর্ষে। চার ম্যাচে ১০ পয়েন্ট। এরপরই এক ম্যাচ কম খেলে ৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে ওমান। সেখানে বাংলাদেশের পয়েন্ট মাত্র এক। শক্তিশালী প্রতিপক্ষের বিপক্ষে আটঘাট নেমেই লড়াই করতে চাইছে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। এই ম্যাচে বড় কোনও পরিবরর্তনের সম্ভাবনা নেই। জামাল-ইয়াসিনরাই যে জেমি ডের বড় ভরসার জায়গা।

Share

Comments

comments

Close