আজ: ২০ জানুয়ারি, ২০২০ ইং, সোমবার, ৬ মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২৬ জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী, রাত ৯:১১
সর্বশেষ সংবাদ
খেলাধূলা মুশফিকের ৭ রানের অপেক্ষা

মুশফিকের ৭ রানের অপেক্ষা


পোস্ট করেছেন: নিউজ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ০১/১৬/২০২০ , ৬:১০ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: খেলাধূলা



মুশফিকের ৭ রানের অপেক্ষা

বাংলাদেশের পাঁচ সিনিয়র ক্রিকেটারের সবাই বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ফাইনালে খেলেছেন। মাশরাফি বিন মুর্তজা, সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদরা ঘরোয়া ক্রিকেটের সবচেয়ে আকর্ষণীয় টি-২০ টুর্নামেন্টে ফাইনালে খেলার স্বাদ পেয়েছেন। প্রথম তিনজন আবার বিপিএল শিরোপা জয়ের গৌরবও অর্জন করেছেন। সিনিয়রদের মধ্যে একমাত্র মুশফিকুর রহিমই বিপিএল ফাইনাল, বিপিএল ট্রফির নাগাল পাননি। 

বঙ্গবন্ধু বিপিএলে আপাতত একটি অপূর্ণতা ঘুচিয়ে ফেলেছেন মুশফিক। সপ্তমবারের চেষ্টায় অধরা ফাইনালের দেখা পেলেন তিনি। এই আসরে খুলনা টাইগার্সের হয়ে প্রথমবার বিপিএলের ফাইনালে উঠেছেন এই উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান। দলটির নেতৃত্বও দিয়েছেন। শুধু নেতৃত্ব নয় ব্যাট হাতেও দুর্দান্ত টুর্নামেন্ট কেটেছে মুশফিকের। যা তাকে এনে দিয়েছে নতুন অর্জনের হাতছানি।

মুশফিকের অপেক্ষা এখন ৭ রানের। আগামীকাল ফাইনালে ৭ রান করলেই নতুন রেকর্ড গড়বেন তিনি। বিপিএলের ইতিহাসে এক আসরে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ডটা তামিম ইকবালের দখলে। ২০১৬ সালে চিটাগং ভাইকিংসের হয়ে ১৩ ম্যাচে ৪৭৬ রান করেছিলেন তামিম। সেবার ৬টি হাফ সেঞ্চুরি করেছিলেন এই বাঁহাতি ওপেনার।

চলমান বিপিএলে খুলনার হয়ে ১৩ ম্যাচে ইতিমধ্যে ৪৭০ রান করে ফেলেছেন মুশফিক। যেখানে আছে চারটি হাফ সেঞ্চুরি। দুইবার সেঞ্চুরির দুয়ার থেকে ফিরে এসেছেন তিনি। ফাইনালে ৭ রান করলেই তামিমকে টপকে যাবেন মুশফিক। বিপিএলের চলমান আসরের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকও এখন তিনি (দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচের আগ পর্যন্ত)।

এর আগে বিপিএলের দ্বিতীয় আসরে ২০১৩ সালে সিলেট রয়্যালসের হয়ে ৪৪০ রান করেছিলেন তিনি। সর্বশেষ আসরে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের হয়ে ১৪ ম্যাচে ৪৬৭ রান করেছিলেন তামিমও।

একই আসরে চিটাগং ভাইকিংসের হয়ে ১৩ ম্যাচে ৪২৬ রান তুলেছিলেন মুশফিক। এক আসরে সর্বোচ্চ রানের মালিক অবশ্য রাইলি রুশো। দক্ষিণ আফ্রিকার বাঁহাতি ব্যাটসম্যান ষষ্ঠ আসরে ১৪ ম্যাচে ৫৫৮ রান করেছিলেন।

এক আসরের বিবেচনায় তামিমের পেছনে থাকলেও বিপিএলের ইতিহাসে সর্বোচ্চ রানের মালিক অবশ্য বাংলাদেশের সাবেক এই অধিনায়ক। গতকাল পর্যন্ত ৮৪ ম্যাচে ২ হাজার ২৫৩ রান আছে মুশফিকের। ৭০ ম্যাচে ২ হাজার ২২১ রান করে দ্বিতীয় স্থানে তামিম।

আগামীকাল প্রথমবার ফাইনাল খেলার সঙ্গে বিপিএল ট্রফি অর্জনের গৌরবটাও মুশফিকের সঙ্গী হবে কি-না তা সময়ই বলে দিবে।

 

 

Share

Comments

comments

Close