আজ: ৮ এপ্রিল, ২০২০ ইং, বুধবার, ২৫ চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৬ শাবান, ১৪৪১ হিজরী, সকাল ৮:১৮
সর্বশেষ সংবাদ
শিক্ষাঙ্গন “মুজিব বর্ষে একুশের চেতনা ” অনুষ্ঠান উদযাপন ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে

“মুজিব বর্ষে একুশের চেতনা ” অনুষ্ঠান উদযাপন ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে


পোস্ট করেছেন: নিউজ ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: ০২/২৮/২০২০ , ১১:৫৪ অপরাহ্ণ | বিভাগ: শিক্ষাঙ্গন



 সাদিয়া তানজিলা, ডিআইইউ প্রতিনিধি:

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (ডিআইইউ) এ ‘মুজিব বর্ষে একুশের চেতনা’ শিরোনামে বর্ণিল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (২৮ফেব্রুয়ারি) দুপুর ২টায় বিশ্ববিদ্যালয় এলিট ইংলিশ ক্লাবের আয়োজনে (সাতারকুল স্থায়ী ক্যাম্পাস) ডিআইইউ অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠানটি শুরু হয়। এলিট ইংলিশ ক্লাবের সভাপতি মাসুদ পারভেজ এর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মোঃ ওমর ফারুকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাস্টিজ এর মাননীয় সভাপতি ব্যারিস্টার শামিম হায়দার পাটোয়ারী (এম.পি) এবং মাননীয় ভাইস চ্যান্সেলর ড.কে এম মোহসিন। অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। ভাষা শহীদদের স্মরণে বক্তব্য রাখেন- বোর্ড অব ট্রাস্টিজ এর ভাইস চেয়ারম্যান জনাব শহীদুল কাদের পাটোয়ারী। এলিট ইংলিশ ক্লাবের উপদেষ্টা জনাব মুশফিকুর রহমান, সহকারী অধ্যাপক জনাব আবু বকর সিদ্দিক প্রমুখ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে ব্যারিস্টার শামিম হায়দার পাটোয়ারী (এমপি) বলেন, বাংলা ভাষার শুদ্ধ চর্চার মাধ্যমে বাঙালির  জাতিগত মর্যাদাকে অনেকদূর এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। বাঙালি জাতির ইতিহাসকে নিরপেক্ষ ভাবে জানতে হবে। তরুণ প্রজন্মের কাছে জানাতে হবে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের গৌরবের অতীত। তিনি আরও বলেন একুশ শুধু বাঙালির নয়, একুশ সারা বিশ্বের জাতির। বায়ান্নর ভাষা শহীদদের স্মরণে এলিট ইংলিশ ক্লাবের প্রধান উপদেষ্টা জনাব আতিকুর রহমান বলেন- একটি জাতির চেতনাকে পরিপূর্ণ করতে ভাষার ভূমিকা বর্ননাতীত। বাঙালি জাতির সার্বিক ইতিহাসকে তুলে ধরার লক্ষ্যে আমাদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে যেতে হবে। তিনি আরও বলেন – মুজিবের জন্মই বাংলাদেশের জন্মের লক্ষ্যে। ইংরেজি বিভাগের প্রফেসর সাজ্জাদ হোসেন বলেন- বুকের তাজা রক্ত দিয়ে বাংলার দামাল ছেলেরা ভাষাকে কিনেছে। কিনিছে একটি প্রতিশ্রুতি,  পেয়েছি একটি লাল-সবুজের পতাকা। । এই প্রতিশ্রুতিকে রক্ষা করতে আমাদের সকল অন্যায়ের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে রুখে দাঁড়াতে হবে। ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক এবং সাবেক চেয়ারম্যান তাহমিনা সুলতানা বলেন-বাংলা ভাষাকে আমাদের মনে-প্রাণে ধারণ করতে হবে। মুজিব বর্ষে আমাদের শপথ হোক কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে প্রকৃত বাঙালি হবার।ভাষার সংমিশ্রণ নয়, চাই বিশুদ্ধ উচ্চারণের মধ্যে দিয়ে বিশ্ব দরবারে বাঙালির  ঐতিহ্যকে সমৃদ্ধ করতে।

সেন্টার ফর এক্সিলেন্স এন্ড ক্যারিয়ার ডেভলপমেন্ট এর পরিচালক এবং ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জনাব আনিসুর রহমান বলেন- ভাষার বিকৃতি হতে আমাদের বেড়িয়ে আসতে হবে। জানতে হবে প্রকৃত বাংলা।  শহীদদের বুকের তাজা রক্ত দিয়ে অর্জিত ভাষার অপভ্রংশ রোধ করতে আমাদের কাজ করে যেতে হবে। জানতে এবং জানাতে হবে জাতির সার্বিক ইতিহাস। ইংরেজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মিলি রহমান তার বক্তৃতায় তুলে ধরেন ইতিহাসের জানা-অজানা সব তথ্য। তিনি বলেন, সাহিত্য জীবনের কথা বলে আর জীবনের এই কথোপকথোনের একমাত্র মাধ্যমই ভাষা। তাই জাতি হিসেবে বাঙালির এই অস্তিত্বের ইতিহাসকে পৌঁছে  দিতে হবে নতুন সম্ভাবনার এই প্রজন্মের কাছে। অনুষ্ঠানের সমাপনী বক্তব্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রখ্যাত ইতিহাসবিদ ড. কে এম মোহসিন বলেন- ভাষার প্রতি দায়বদ্ধতা আমাদের সকলের৷ জাতির ক্রান্তিলগ্নে দেশের জন্য,দেশের মানুষের জন্য জীবন দিয়ে গিয়েছেন শ্রেষ্ঠ মানুষগুলো। তাদের এই আত্নত্যাগের ইতিহাসকে আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম হতে প্রজন্মের কাছে ছড়িয়ে দিতে হবে৷ এছাড়া পুরো অনুষ্ঠান জুড়ে ছিল এলিট ইংলিশ ক্লাবের পরিবেশনায় দেশাত্মবোধক গান, একক আবৃত্তি, বানান শুদ্ধিকরণ,কুইজ প্রতিযোগিতা এবং একক ও দ্বৈত নৃত্য। ক্লাবের উপদেষ্টা আনিসুর রহমান দৈনিক মতপ্রকাশ কে জানান-ভাষা শহীদদের স্মরণে আমরা প্রতিবছরই এমন আয়োজন করে থাকি। শিক্ষার্থীদের মাঝে একুশের চেতনা উজ্জীবিত করতেই আমাদের এই ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা।

Share

Comments

comments

Close